আফগান সেনা ছাউনিতে তালিবানি হামলায় মৃত বেড়ে ১৪০

Aaj Bangla : আফগানিস্তানের সেনার উপর হামলা চালাল তালিবানি সন্ত্রাসবাদীরা। শুক্রবার রাতে আফগান সেনারা সেনা ছাউনি থেকে যখন নামাজ পরার জন্য বের হচ্ছিলেন তখনই বিষ্ফোরণ ঘটায় তালিবানিরা।মাজার ই শরিফের সেনা ঘাটিতে এ ঘটনা ঘটে।

সেনাবাহিনীর পোশাক পড়ে আফগানিস্তানের সামরিক ঘাটিতে চালানো তালিবান হামলায় কমপক্ষে ৭০জন নিহত হয়েছে বলে আফগান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল। কিন্তু রাত পার হতেই মৃতের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় অনেক সেনা কর্মীরা হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আফগান সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, সৈনিকরা যখন শুক্রবারের নামাজের জন্য সেনা ঘাটির বাইরে বের হচ্ছিল, তখন সেনা সদস্যদের মতোই পোশাক পড়ে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তারা আরেকটি দল হামলা করে ক্যান্টিনে থাকা সেনাদের উপর। তালিবান জানিয়েছে, তাদের হামলাকারীরা আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রথমেই ঘাটির প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভেঙ্গে  দিয়েছে। কমপক্ষে ১০ জন তালিবান জঙ্গি আফগান সেনা ইউনিফর্ম ও সেনা যান নিয়ে শহরটির একটি ঘাঁটিতে হামলা চালায়।  হামলায় রকেটচালিত গ্রেনেড ও রাইফেল ব্যবহার করে জঙ্গিরা। তবে হতাহতের আনুষ্ঠানিক কোনো সংখ্যা প্রকাশ করেনি আফগান সরকার।

আফগান শহরের একজন কর্মকর্তা নিহত সেনা সদস্যের ওই সংখ্যা দিয়েছেন। তবে অন্যান্য কর্মকর্তাদের আশঙ্কা, এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তালিবান জঙ্গি সংগঠনের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ গতকাল এক বিবৃতিতে এ হামলার দায় স্বীকার করেছেন। হামলায় আহত এক সেনা মহম্মদ হুসেন জানান, ‘‌আমি মসজিদ থেকে বেরনোর সময় লক্ষ্য করি তিনজন সেনার পোশাকে সেনার গাড়ি করে গুলি চালাতে চালাতে চালাতে আসছে। সেনাঘাঁটির ভিতরে নিশ্চয়ই তাদের চর ছিল, না হলে তারা সেনাঘাঁটির ভিতরে ঢুকতে পারত না। তিনজনের মধ্যে একজন গাড়ির মধ্যে বসে তার মেশিনগান ঠিক করছিল এবং গাড়ির জানলা দিয়ে সকলের ওপর গুলি চালাচ্ছিল।’‌
আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি শনিবার আহত সেনাদের দেখতে যান। মার্কিন সেনার মুখপাত্র জন টমাস তালিবানি এই হামলার তীব্র নিন্দা করেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও টুইট করে এই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন গতকাল।